জামালপুরের মানুষ টিএমসির ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে আছে, তাই আসল পরিবর্তন চাইছে : বলরাম ব্যাপারী

ডেস্ক. এইবার বিধানসভা নির্বাচনে মানুষের মনের একই প্রশ্ন, কি হবে এবার? পরিবর্তন হবে না আবার সেই তৃণমূলের শাসন হবে? পূর্ব বর্ধমান জেলার জামালপুরের মানুষের মনেও এই প্রশ্নই চলছে। তবে বিজেপির প্রার্থী বলরাম ব্যাপারী দাবি করছেন, এবার মানুষ আসল পরিবর্তন চাইছে। তিনি বললেন, হাওয়া খুব ভালো, সাধারণ মানুষের প্রচুর সারা, যখন গ্রামে যাচ্ছি, তারা ঘর থেকে বেরিয়ে এসে কেউ শাঁখ বাজাচ্ছে, কেউ উলু দিচ্ছে, কেউ ফুল ছুড়ছে। আর সাধারন মানুষ এসে তাদের বিভিন্ন অভাব-অভিযোগের কথা আমাকে বলছেন।

বিজেপি আসলে ১০০ দিনের কাজ ২০০ দিন হবে, কাটমনি বন্ধ হবে, উন্নত মানের মেটারিয়ালস দিয়ে রাস্তা তৈরি করব

আমরা আসলে ১০০ দিনের কাজ ২০০ দিন হবে। বাংলা দুর্নীতিমুক্ত হবে। টিএমসি সরকারে যে রাস্তাঘাট হচ্ছে যে সমস্ত নিম্নমানের মেটিরিয়ালস দিয়ে তৈরি হচ্ছে, সেই কাট মানি বন্ধ হবে। কোথাও কোথাও রাস্তা দেখা যাচ্ছে করে গেছে, কিন্তু সেগুলো এক মাসের মধ্যে আবার পিচ উঠে চলে গেছে।
আমরা এলে আমাদের প্রথম লক্ষ্য থাকবে যাতে রাস্তায় যে কাটমানি টা চলে সেই কাটমানি টা যেন বন্ধ হয় এবং উন্নত মানের মেটারিয়ালস দিয়ে রাস্তা তৈরি করব।

বৃদ্ধ ভাতা, বিধবা ভাতা দেওয়া হচ্ছে না
মানুষ আমাকে দুহাত ভরে আশীর্বাদ দিচ্ছে, যে বিজেপি সরকার আসছে, তৃণমূল সরকার যাচ্ছে। গ্রামে গ্রামে যখন যাচ্ছি তখন মানুষ বিভিন্ন রকমের অভাব-অভিযোগের কথা জানাচ্ছে। যেমন দেখা যাচ্ছে ঘরটা পড়ে যাবে, সেই লোকটা ১০ বছর ধরে ঘর পায় না অথচ সে উপযুক্ত লোক যে ঘর পাওয়ার মতো, যে বৃদ্ধ ভাতা বা বিধবা ভাতার সয় সম্বলহীন তার কোন দেখভাল করার মতো কেউ নেই, তাদেরকেও বৃদ্ধ ভাতা বিধবা ভাতা দেওয়া হচ্ছে না।

দুর্নীতি থেকে এখন পরিত্রাণ চাইছে মানুষ
১০০ দিনের কাজেও দুর্নীতি হচ্ছে এই নিয়ে চতুর দিকে দুর্নীতিগ্রস্ত ভরে গেছে। সারাবাংলা তাই সাধারণ মানুষ চাইছে এর থেকে এখন পরিত্রাণ।

বিজেপি এলে প্রত্যেক পঞ্চায়েতে নিকাশের ব্যবস্থা, রাস্তাঘাট, ব্রিজ তৈরি হবে

ব্যাপারী বলেছেন, আমার বিধানসভায় অনেক পঞ্চায়েতে নিকাশের ব্যবস্থা নেই, বিজেপি সরকারে এলে, সেই নিকাশের ব্যবস্থা ঠিক হবে । রাস্তাঘাট বিভিন্ন জায়গায় তৈরি হয়নি সেগুলো তৈরি হবে । যে ব্রিজ এখনো আটকে আছে সেই ব্রিজ আমরা এলে সম্পূর্ণ করব।

আমরা এলে জামালপুর হসপিটালে ব্যবস্থা উন্নত করবো

জামালপুরে যে হসপিটাল আছে, সেটা বেহাল দশা, ডাক্টর নেই, আমরা এলে সেই হসপিটালে ব্যবস্থা উন্নত করবো।

কলেজের পরিকাঠামোটা উন্নত করবো
জামালপুরে যে কলেজ টা আছে সেটা এখনো ভালো করে উন্নত হয়নি পরিকাঠামো দিক থেকে পিছিয়ে আছে, আমরা এলে সেই জায়গাগুলো উন্নতি করবো। জামালপুরের বিভিন্ন বিষয়ে যারা পিছিয়ে আছে পিছিয়ে পড়া মানুষ আমরা তাদের এগিয়ে নিয়ে যাব।

বিজেপি ক্ষমতায় এলেই ১৮০০০ টাকা সমস্ত কৃষকদের একাউন্টে পৌঁছে যাবে

তিনি বললেন, কৃষকরা যে কৃষকদের সম্মান নিধি পাচ্ছে না এবং ৩ বছরের ১৮ হাজার টাকা পাওয়ার কথা যে এখনো ১৮ হাজার টাকা করে পাইনি আমরা ক্ষমতায় এলেই আমরা ১৮০০০ টাকা সমস্ত কৃষকদের একাউন্টে পরিবারের কাছে পৌঁছে যাবে।

আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প পশ্চিমবঙ্গে ঢুকতে দেয়নি দিদি

আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প আমাদের পশ্চিমবঙ্গে ঢুকতে দেয়নি দিদি। আমরা এলেই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প চালু করব।

বামফ্রন্টের বিধায়ক সমর হাজরা মাত্র প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, কিন্তু কিছু করেন নি

এখন যিনি বিধায়ক আছেন উনি হল বামফ্রন্টের সমর হাজরা । ৩৪ বছর ধরে অনেক গরীব মানুষদের নিয়ে রাজনীতি করে গেছেন। গরিব মানুষদের বিভিন্ন রকম প্রতিশ্রুতি দিয়ে গেছেন । ঘর থেকে শুরু করে রাস্তা থেকে শুরু করে বিভিন্ন যোজনা থেকে শুরু করে বৃদ্ধ ভাতা বিধবা ভাতা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন । প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কিন্তু তিনি বাস্তবে একটা কিছু করেন নি । তাই মানুষ ওনাকে আর চাইছে না, এবার বিজেপিকে চাইছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here